অনলাইন ক্লাসের জন্য স্ক্রিন রেকর্ডিং ও ভিডিও এডিটিং নিয়ে সাধারণ কিছু কথা

986

অনলাইন ক্লাসের জন্য স্ক্রিন রেকর্ডিং ও ভিডিও এডিটিং নিয়ে সাধারণ কিছু কথা

দেশের বিদ্যমান পরিস্থিতির কারণে আমাদের দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে অনলাইনে ক্লাস নেয়া হচ্ছে। অনলাইন ক্লাসগুলো হচ্ছে মূলত বেশকিছু মাধ্যমে যেমন- এক. ফেসবুক লাইভ, দুই. প্রস্তুতকৃত ভিডিও ফেসবুক এবং ইউটিউবে আপলোড তিন. ম্যাসেঞ্জার গ্রুপ, চার. Zoom/Google Meet ক্লাউড মিটিং পাঁচ. গুগল ক্লাসরুম ইত্যাদি।
অনলাইনে ফেসবুক ও ইউটিউবে লাইভ ক্লাস অথবা ভিডিও আপলোডের জন্য প্রয়োজন অডিও/ভিডিও রেকর্ডিং। এই রেকর্ডিংটা হতে পারে স্ক্রিন রেকর্ডিং অথবা ভিডিও রেকর্ডিং। এজন্য আপনার প্রয়োজন কিছু হার্ডওয়্যার এবং সফটওয়্যারের। আমাদের অনেক শিক্ষক আছেন, তারা ঠিক বুঝতে পারছেন না যে, কীভাবে শুরু করবেন? তাদের জন্য আমার এই লেখা।

——————————————————————-

📌📌শিক্ষা সম্পর্কিত খবরাখবর জানতে এখানে ক্লিক করে শিক্ষা গ্রুপে ঢুকে JOIN GROUP এ  ক্লিক করুন।গ্রুপে আপনিও শেয়ার করুন…

——————————————————————-

👉👉দৈনন্দিন শিক্ষা সম্পর্কিত খবরাখবর পেতে এখানে ক্লিক করে দৈনিক শিক্ষা সংবাদ পেইজে ঢুকে ” LIKE PAGE ” 👍 এ লাইক দিন

——————————————————————-

কী কী হার্ডওয়্যার প্রয়োজন?
১. মোটামুটি মানের একটি ল্যাপটপ/ডেস্কটপ
২. মোটামুটি মানের একটি এন্ড্রয়েড ফোন (নিজের ক্লাস ভিডিও করার জন্য)
৩. একটি ওয়েবক্যাম (প্রয়োজনে) অথবা ল্যাটপের বিল্টইন ওয়েবক্যামই যথেষ্ট
৪. মাইক্রোফোন (স্পষ্ট কথা রেকর্ডিংয়ের জন্য)
৫. গ্রাফিকস ট্যাবলেট (যদি বোর্ডে না লিখে নিজের হাতে লেখালেখি করতে চান)

কী কী সফটওয়্যার প্রয়োজন?
১. Microsoft PowerPoint 2016 বা তার ঊর্দ্ধ (২০১০ বা তার থেকে পুরাতন ভার্সনে হবে কি না তা আমার জানা নেই)
২. OBS (Open Broadcasting Software) এটা ফ্রি সফটওয়্যার। এটা দিয়ে একাধিক দৃশ্যের সমন্বয়ে ক্লাস রেকর্ড এবং ফেসবুক বা ইউটিউবে লাইভ সম্প্রচার করা যায়।
৩. SmoothDraw/AutoDesk/SketchBook ইত্যাদি। লেখালেখির কাজের জন্য যদি আপনার গ্রাফিক ট্যাবলেট থাকে তাহলে। তাছাড়া দরকার নেই। গ্রাফিক ট্যাবলেট একধরণের প্যাড, যেখানে আপনি হাতে যা লিখবেন তাই কম্পিউটার স্ক্রিনে ভেসে উঠবে।
৪. Acrobat Reader/MS Word/Paint (প্রয়োজন হতে পারে)
৫. Windows Movie Maker (ভিডিও এডিটিং এবং ভিডিও সাইজ কমানোর জন্য)। গুগলে সার্চ দিয়ে ফ্রি ডাউনলোড করে নিতে পারেন।
৬. Camtasia (এটাও ভিডিও এডিটিং এবং স্ক্রিন রেকর্ডিংয়ের জন্য)। এটি ফ্রি ট্রায়াল ভার্সনে খুব একটা বেশিদিন কাজ করা যায় না।

রেকর্ডিংয়ের জন্য প্রস্তুতি:
১. মার্জিত পোশাক পড়ুন
২. ছেলেদের ক্লিন শেভড। মেয়েরা হালকা মেকআপ করতে পারেন
৩. বাইরের আওয়াজ কম আসে এমন একটি ঘর বেছে নিন (যদিও এডিটিংয়ে নয়েজ কন্ট্রোল করা যায়)
৪. দেয়ালের ব্যাকগ্রাউন্ড কালার সাদা, সবুজ, নীল বা গাঢ় রংয়ের হলে পরে এডিটিং করতে সুবিধা হয়।
৫. নিজেকে এবং বোর্ড পরিষ্কার দেখার জন্য পর্যাপ্ত লাইটিং।
৬. বোর্ডে বড় করে স্পষ্টভাবে লিখতে হবে।
৭. মাইক্রোফোন সুবিধাজনক স্থানে সেট করুন।
৮. লাইভ সম্প্রচারের জন্য পর্যাপ্ত মোবাইল ডাটাসহ 4G কানেকশন অথবা ওয়াইফাই কানেকশন নিশ্চিত করুন।
৯. ইত্যাদি…

সম্প্রচারের জন্য কী কী প্রয়োজন?
১. নিজের ফেসবুক আইডি এবং নিজের একটি পেজ। নিজের ফেসবুক পেজ না থাকলে যে পেজে লাইভ সম্প্রচার করতে চান, অবশ্যই সেই পেজের এডমিন কর্তৃক আপনাকে পূর্ব থেকেই পারমিশন দিয়ে রাখতে হবে। কেননা ফেসবুক পেজ ছাড়া নিজের টাইমলাইন এবং গ্রুপে লাইভ দেয়া যায় না। ধারণকৃত ভিডিও নিজের টাইমলাইন এবং ফেসবুজ পেজে আপলোড করতে পারবেন। তবে, ফেসবুক গ্রুপে 25MB এর বেশি কোনো ফাইল আপলোড করা যায়না।
২. নিজের ইউটিউব চ্যানেল।

কী কী কাজ করবেন?
১. শুরুর ব্যানার বা পাঠের গুরুত্বপূর্ণ বিষয় বা আপনি যদি কোনো প্রশ্ন/সমাধান/বইয়ের অংশ ইত্যাদি দেখাতে চান, তাহলে সেগুলো দিয়ে পূর্বেই পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশন প্রস্তুত করে রাখুন।
২, স্মার্ট ফোন/ভিডিও ক্যামেরা দিয়ে ক্লাসের ভিডিও করুন।
৩. স্ক্রিন রেকর্ডিংয়ের জন্য – পাওয়ার পয়েন্ট থেকে Insert-> Screen Recording তারপর এরিয়া চুজ করুন্। কথা রেকর্ডিং করতে চাইলে Audio on রাখুন না হলে off রাখুন। তারপর Record ক্লিক দিন। রেকর্ড হওয়ার পরে ভিডওটি একটি স্লাইডে আসবে। আলাদা ভিডিও ফাইল হিসেবে সেভ করতে চাইলে ভিডিও ফ্রেমের উপর রাইট ক্লিক দিন, তারপর Save As Media ক্লিক দিয়ে কোন ফরমেটে সেভ করবেন তা সিলেক্ট করে সেভ করুন। অন্য আরও স্ক্রিন রেকডিং সফটওয়্যার আছে। তবে, আমাদের কাছে পাওয়ার পয়েন্ট থাকতে অন্য সফটওয়্যারের পিছনে না ছুটাই ভালো।

ভিডিও এডিটিংয়ের জন্য –
১. স্ক্রিন রেকর্ডিং অথবা ভিডিও এডিটিংয়ের জন্য Windows Movie Maker/Camtasia/OBS দিয়ে প্রয়োজনীয় এডিট করুন।
২. ভিডিও ফরমেটে এডিটিং ফাইলটি সেভ করুন।
৩. ভিডিও ফাইলটি নিজের ইউটিউব চ্যানেল অথবা ফেসবুক পেজে আপলোড করুন।
৪. ইউটিউবে আপলোডকৃত ভিডিও ফাইলটি শেয়ার করতে চাইলে, ওই ভিডিও লিংক কপি করুন এবং বিভিন্ন মাধ্যমে পেস্ট করে শেয়ার করুন।

ভিডিও লাইভ সম্প্রচারের জন্য –
১. OBS এ প্রয়োজনীয় Scene তৈরি করুন (ইউটিউব থেকে ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখে শিখত হবে)।
২. ফেসবুক লগইন করে সংশ্লিষ্ট পেজ ওপেন করুন।
৩. ফেসবুক পেজের Creator Studio ক্লিক করুন।
৪. Go Live ক্লিক করুন
৫. Use Stream Key সিলেক্ট করে Stream Key copy করুন
৬. OBS ওপেন করুন।
৭. Settings -> Stream -> Steam Key বক্সে Paste করুন -> Apply -> OK
৮. Start Streaming
৯. ফেসবুক পেজে ফিরে গিয়ে লাইভ স্টার্ট করুন।
১০. লাইভ শেষ হলে Finish ক্লিক দিয়ে Share ক্লিক করুন।
মোটামুটি এই ছিলো সাধারণ কিছু Hints. এছাড়া বিস্তারিত জানতে এবং শিখতে ইউটিউবে সার্চ দিলে বেশকিছু টিউটোরিয়াল পাবেন। সেগুলো দেখে আরও বিস্তারিত ও আরও অ্যাডভান্স অনেক কিছু শিখতে পারবেন। তবে, মাঠে নামার জন্য সে সাধারণ বিষয়গুলো আপনার মনে ঢুকিয়ে দেয়া প্রয়োজন বলে মনে হলো, সেগুলোই এখানে বর্ণনা করলাম।

শুভকামনা সবার জন্য।

এম. ওয়াজির হোসেন
কম্পিউটার অপারেশন সুপারভাইজার
সরকারি টিচার্স ট্রেনিং কলেজ, যশোর
সংযুক্ত কর্মকর্তা, মাউশি অধিদপ্তর
waazir@gmail.com

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Facebook Comments