অনলাইন স্কুলে লাইভ বা রেকর্ডকৃত ক্লাস পরিচালনা: কতিপয় বিবেচ্য বিষয়

1668

অনলাইন স্কুলে লাইভ বা রেকর্ডকৃত ক্লাস পরিচালনা: কতিপয় বিবেচ্য বিষয়
================================

নাজমুদ্দীন মোঃ তাওহীদ,সম্পাদক ও প্রকাশক : চলমান বিশ্ব পরিস্থিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় বিভিন্ন স্তরে শিক্ষা কার্যক্রম চালু রাখার জন্য বিবিধ উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর, এবং এটুআই-এর প্রত্যক্ষ তত্তাবধানে এ কার্যক্রম বাস্তবায়িত হচ্ছে। আমরা সংশ্লিষ্ট সকলকে আন্তরিক শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি। সরকারি উদ্যোগের পাশাপাশি কিছু উৎসাহী ও নিবেদিত শিক্ষক নৈতিক ও ব্যক্তিক দায়বদ্ধতা থেকে স্ব-প্রণোদিত হয়ে বেশ কয়েকটি অনলাইন স্কুল কার্যক্রম চালু করেছেন। তাঁদের সকলকে আন্তরিক কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানাই। আমি ব্যক্তিগত আগ্রহ থেকে বেশ কিছু অনলাইন স্কুলের লাইভ সম্প্রচার ও লাইভ পরবর্তী ক্লাস রিভিউ করে সম্মানিত শিক্ষকগণের পরামর্শের জন্য কতিপয় বিষয় বিবেচনার জন্য উপস্থাপন করলাম। আশা করি ক্লাস পরিচালনাকারী শিক্ষকগণ বিশেষত: নুতন শিক্ষকগণ এতে উপকৃত হবেন।

——————————————————————-

📌📌শিক্ষা সম্পর্কিত খবরাখবর জানতে এখানে ক্লিক করে শিক্ষা গ্রুপে ঢুকে JOIN GROUP এ  ক্লিক করুন।গ্রুপে আপনিও শেয়ার করুন…

——————————————————————-

👉👉দৈনন্দিন শিক্ষা সম্পর্কিত খবরাখবর পেতে এখানে ক্লিক করে দৈনিক শিক্ষা সংবাদ পেইজে ঢুকে ” LIKE PAGE ” 👍 এ লাইক দিন

——————————————————————-

 প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি
পাঠদানের জন্য ব্ল্যাক বোর্ড বা হোয়াইট বোর্ড সংগ্রহ করুন। ইন্টারনেট কানেকশনের জন্য ব্রডব্যান্ড সংযোগ বা ভালো প্যাকেজের মোবাইল ইন্টারনেট সেবা প্রস্তুত রাখুন। রেকর্ডিং-এর জন্য স্মার্ট ফোন, ট্যাব বা ডিএসএলআর ক্যামেরা ইত্যাদি এবং সম্ভব হলে ট্রাইপড স্ট্যান্ড, ক্যামেরা স্ট্যান্ড বা স্মার্ট ফোন, ট্যাব বা ডিএসএলআর ক্যামেরা আটকানোর ব্যবস্থা যা হাতের কাছে পাওয়া যায় তা সংগ্রহ করার চেস্টা করুন। মাইক্রোফোন হিসেবে ‘টাই পিন টাইপ’ মাইক্রোফোন দিয়ে রেকর্ড করা উত্তম। কক্ষে পর্যাপ্ত আলোক সম্পাতের জন্য লাইটের ব্যবস্থা করে নিতে হবে। তা ছাড়া রেকর্ড করার কক্ষকে সুবিধা মতো সেটিং করে নিতে হতে পারে।
 ব্যক্তিগত প্রস্তুতি
‌যে সকল শিক্ষক প্রথমবার অনলাইন ক্লাস নিতে যাচ্ছেন তাঁরা ক্লাস নেয়ার পূর্বে সমালোচকের চোখে অন্যদের অন্তত ৩/৪ টি ক্লাস অফলাইনে দেখুন; প্রয়োজনে বিভিন্ন অংশ Rewind করে দেখুন। আপনার পছন্দের ২/১ জনের সাথে কথা পরামর্শ করুন। ৫/১০ মিনিটের ১/২টি ক্লাস রেকর্ড করে নিজে দেখুন, অন্যদের দেখান। সম্ভব হলে অনুশিক্ষণ (Micro Teaching)-এর দক্ষতাগুলো অনুসরণ করুন। পাঠ নির্বাচনে কারিকুলামের নির্দেশনা অনুসরণ করবেন।
 পোষাক
অনলাইন ক্লাসে অবশ্যই শিক্ষক সুলভ ও শোভন পোষাক পরিধান করুন। পুরুষদের জন্য ফুল হাতা জামা, প্যান্ট ও মহিলাদের জন্য শাড়ী বা সেলোয়ার-কামিজ পরিধান করা উত্তম। টি শার্ট, গেঞ্জী ইত্যাদি পরিধান পরিহার করুন। চুল পরিপাটী থাকা দরকার।
 ক্লাস শুরুর পূর্বে
ইন্টারনেট কানেকশন ঠিক আছে কিনা দেখে নিন। লাইভ ক্লাস নেয়ার নির্দিষ্ট সময়ের অন্তত পাঁচ মিনিট পূর্বেই সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করুন। কক্ষে পরিমিত আলোক সম্পাত নিশ্চিত করুন। পাঠদানের জন্য একটি সংক্ষিপ্ত আউটলাইন বা পাঠ পরিকল্পনা করে নিন যেন সময়ের সাথে শিখনফল Cover করা যায়। প্রয়োজনে প্রতিটি শিখনফলের জন্য সময় ভাগ করে নিন। কন্ঠস্বর ঠিকমতো রেকর্ড হচ্ছে কিনা তা পরীক্ষা করে নিন। বোর্ডের ডানে-উপরের কোনায় বিষয়, শ্রেণি, তারিখ, প্রতিষ্ঠানের নাম ইত্যাদি লিখে রাখুন।
পাঠ পরিকল্পনার নমুনা আউটলাইন:
শিখনফল সময় (মি.) পাঠদান পদ্ধতি / কৌশল পরিকল্পিত উপকরণ অন্যান্য বিবেচ্য
শিখনফল ১
শিখনফল ২
শিখনফল ৩
 ‌ক্যামেরা স্থাপন ও হ্যান্ডলিং
‌শুরুতেই ক্যামেরার পজিশন ঠিক করে রেকর্ড শুরু করতে হবে। মোবাইলের ক্যামেরার Face Detection অফ করে নিন। মোবাইলের Auto Focus Option অফ করে নিন। মোবাইলের Auto Focus Option না থাকলে প্লে স্টোর থেকে CameraFi Live এপ্লিকেশনটি ইন্সটল করে নিন। তবে এ কাজটি করার জন্য বেশ কিছু দক্ষতার প্রয়োজন আছে। ‌ক্যামেরা এমনভাবে স্থাপন করুন যেন মাথার উপরে খুব বেশি খালি না থাকে বা মাথা কাটা না যায়। ক্যামেরা ব্যবহার করলে ল্যান্ডস্কেপ (Landscape) মোডে দিয়ে রাখুন। ল্যান্ডস্কেপ মোডে না থাকলে অটোরোটেশন (Auto Rotation) অন করে রাখুন। মোবাইলের Front Camera বা সেলফি মোডে লাইভ ব্রডকাস্ট করবেন না। এতে আপনার লেখা উল্টো দেখা যাবে। ক্যামেরা সম্ভব মতো খুব ক্লোজ করে ধরতে হবে যেন লেখা ভালো মত দেখা যায়। নিজের ক্লাস কেমন হচ্ছে তা লাইভ দেখতে চাইলে অন্য একটি ডিভাইস ব্যবহার করুন।
 সিডিউল
কমপক্ষে ১ সপ্তাহ আগে সিডিউল করে নিন । ক্লাস টাইম ২০ থেকে ৩০ মিনিট হওয়া উত্তম। সংসদ বাংলাদেশ টেলিভিশনের ক্লাস সিডিউল বাদ দিয়ে অন্য সময়ে ক্লাস নিন। ক্লাস শুরুর আগের দিন সংশ্লিষ্ট অনলাইন স্কুলের সাথে একবার যোগাযোগ করে নিন।
 পাঠ পরিচালনা
শুভেচ্ছা বিনিময় ও ভূমিকাতে বেশি সময় নেবেন না। অবশ্যই ‌পাঠের ‘বিভাজিত শিখনফল’ বা আলোচ্য বিষয়ের অংশগুলো উল্লেখ করুন। শিখনফলে Benjamin Bloom-এর বুদ্ধিবৃত্তিক ডোমেন (Cognitive Domain)-এর প্রতিফলন থাকা চাই। বুদ্ধিবৃত্তিক ডোমেন-এর উপস্তরগুলো হচ্ছে: Remember (স্মরণ করা), Understand (বুঝতে পারা), Apply (প্রয়োগ করা), Analyze (বিশ্লেষণ করা), Evaluate (মূল্যায়ন করা), Create (সৃজন করা)। প্রতিটি শিখনফল ধরে ধরে পাঠ আলোচনা করুন। সম্ভব মতো উদাহরণের অবতরণা করুন। বোর্ড ব্যবহার ছাড়া অন্য সময়ে ক্যামেরার দিকে তাকিয়ে পাঠ আলোচনা করুন। একেবারে স্থির অবস্থানে না থেকে বডি ল্যাংগুয়েজ, চোখের চাহনি ইত্যাদি দিয়ে আপনার ক্লাসকে প্রাণবন্ত করে রাখবেন। অনেকগুলো পয়েন্ট আছে এমন বিষয়বস্তু আলোচনা বা ব্যাখ্যার জন্য Mind Map কৌশল ব্যবহার যায়। তাছাড়া কোন বিষয়বস্তু বিশ্লেষণে Technological Pedagogical Content Knowledge (TPACK) মডেল বিবেচনায় নিয়ে পাঠ প্রস্তুত ও উপস্থাপন করুন। এ সম্পর্কে ওয়েব লিংক থেকে (http://www.tpack.org/) বিস্তারিত জানা যাবে। পাঠদানে 4C-কে (1-Critical thinking 2-Creativity 3-Collaboration 4-Communication) বিবেচনায় নিন। পাঠদানের জন্য অনেক পাঠদান পদ্ধতি ও কৌশল আমরা জানি। তা থেকে অনলাইন পাঠদানে উপযুক্ত বা প্রযোজ্যগুলো সচেতনভাবে ব্যবহার করা যায়।
 বোর্ড ব্যবহার
পাঠ শেষ না হওয়া পর্যন্ত বোর্ডের মাঝখানে ‘পাঠ শিরোনাম’ লিখে রাখুন। সম্ভব মতো White Board ব্যবহার করুন। বোর্ডকে কয়েকটি অংশে ভাগ করে নিয়ে পরিকল্পিতভাবে কাজ শুরু করুন যেন তা বার বার মুছতে না হয়। বোর্ডে লিখার আকার (Font Size) এমন হবে যেন তা পড়া যায়। লিখার সময় মুখ সরাসরি বোর্ডের দিকে না রেখে একপাশে থেকে একটু বাঁকা হয়ে লিখুন যেন বোর্ড ঢেকে না যায়। বোর্ডে লেখার সময় মুখেও উচ্চারণ করুন। কোন কিছু হাতে না দেখিয়ে Pointer ব্যবহার করুন।
 প্রজেক্টর ব্যবহার
প্রজেক্টর ব্যবহারের বেলায় সম্ভব হলে প্রজেকশন স্ক্রিন ব্যবহার করুন। সারাক্ষণ প্রজেক্টর বোর্ডে ফোকাস করে রাখবেন না। প্রজেক্টর দরকার না হলে ফোকাস বরাবর একটি মোটা কাগজ বা কার্ড দিয়ে রাখুন। প্রজেক্টর একবার বন্ধ করলে আবার স্টার্ট করতে সময় নেবে।
 প্রশ্নের অবতারণা
পাঠ চলাকালে রিয়েল (Real) ক্লাসের মতো মাঝে-মাঝে প্রশ্ন করুন। ২ / ৩ সেকেন্ড Pause দিয়ে নিজেই উত্তর দিন। বিভিন্ন মুখী ও চিন্তন দক্ষতামূলক প্রশ্ন করুন। ‘সৃজনশীল প্রশ্ন’-এর ধারণা মাথায় রেখে প্রশ্ন করুন।
 ক্লাস রেকর্ড ও ব্রডকাস্ট
ক্লাস ‘লাইভ ব্রডকাস্ট’ বা ‘পূর্ব থেকে রেকর্ডেড’ হতে পারে। ক্লাস রেকর্ডের জন্য মোবাইল ফোন, ট্যাব বা ডিএসএলআর ক্যামেরা কোন্‌টি ব্যবহার করবেন তা ঠিক করে রাখুন। প্রয়োজনে বিকল্প বা ব্যাকআপ ব্যবস্থা করে রাখুন। মোবাইল থেকে লাইভ ব্রডকাস্ট করলে সিম সার্ভিস বন্ধ (Airplane Mode বা Incoming Off Mode) রাখতে হবে। নতুবা ইনকামিং কল আসলে ব্রডকাস্ট বন্ধ হয়ে যাবে। প্রয়োজনে সিমে কল ডাইভার্ট করে রাখতে পারেন। সম্ভব হলে অন্যের সাহায্য নিয়ে রেকর্ড করুন। রেকর্ড করার ডিভাইসটি স্থির (Fixed) করে রাখুন; রেকর্ডের মাঝখানে নাড়াচাড়া করলে পূণরায় পজিশন ঠিক করতে সমস্যা হতে পারে। বাইরের শব্দ বা Noise প্রবেশ থেকে সতর্ক থাকুন। রেকর্ড করার সময় পর্যাপ্ত আলো থাকা দরকার। একই সাথে চার্জলাইট ব্যাকআপ হিসেবে রাখুন। সম্ভব হলে সবুজ রং-এর কাপড় বা স্ক্রিন ব্যাকগ্রাউন্ড হিসেবে থাকলে ভালো হয়। রেকর্ডের সময় ক্যামেরার ফোকাসের দিকে তাকিয়ে কথা বলুন। ‘লাইভ ব্রডকাস্ট’ করার জন্য অনেকে Open Broadcaster Software (OBS) সফটওয়্যার ব্যবহার করে থাকেন। জনপ্রিয় ওবিএস হিসেবে OBS Studio সফটওয়্যার অনেকে ব্যবহার করেন। এ সকল সফটওয়্যার ভালোভাবে রপ্ত করতে না পারলে ব্যবহার না করাই উত্তম।
 উপকরণ প্রদর্শন
সকল উপকরণ হাতের কাছে রাখুন। পোস্টার ব্যবহার করলে মোটা কলমে বা পারমানেন্ট মার্কার দিয়ে লিখুন; না পেলে কলমের মাথায় তুলা আটকে নিয়ে মোটা করে নিন। পোস্টারের লেখায় হালকা রঙ ব্যবহার না করাই উত্তম। পোস্টারে বর্ডার এঁকে নিন। মডেল হিসেবে বাস্তব উপকরণ ব্যবহার করতে পারলে ভালো। মডেল হিসেবে ব্যবহৃত বস্তু বা উপকরণ সম্ভব মতো বড় হওয়া দরকার। মডেল বা পোস্টার প্রদর্শন করার জন্য ক্যামেরার সামনে ধরুন। এ ক্ষেত্রে কত দূর থেকে ধরলে ঠিক মতো দেখা যায় তা আগেই ট্রায়াল দিয়ে রাখুন। বড়ো পোস্টারের পরিবর্তে Point গুলোকে A4 সাইজের কাগজেও লিখা যায়।
 পাওয়ার পয়েন্টের স্লাইড তৈরি
ডিজাইন/ডিফল্ট স্লাইড ব্যবহার না করে ব্ল্যাঙ্ক স্লাইড ব্যবহার করা যায়। স্লাইডে ব্যাকগ্রাউন্ড না দিলে ভালো। আবার, কালো ব্যাকগ্রাউন্ডে সাদা বা হলুদ লেখাও ভালো দেখা যায়। টেক্সট-এর কালার হাল্‌কা না দিয়ে গাঢ় হওয়া উচিত; হাল্‌কা রঙ ভালোমতো দৃশ্যমান হয় না। অযথা বা বিনা প্রয়োজনে এনিমেশন ব্যবহার না করাই উত্তম। বেশি এনিমেশন ব্যবহার করলে পাঠদান ধীর লয়ে অগ্রসর হবে। ভালো মানের/ Resolution-এর অডিও বা ভিডিও বাছাই করুন। বেশি দৈর্ঘের ভিডিও না দেওয়া ভালো।
 মূল্যায়ন
অনলাইনে সরাসরি মূল্যায়নের সুযোগ কম। তাই পাঠ শেষে কাজ প্রদান করলে তা সাবমিট করতে বলা যায়। কাজ সাবমিটের ধরণ হিসেবে Image, Audio, Video, Docs (MS Word, MS Excel, MS PowerPoint) ইত্যাদি বিবেচনা করা যায়। অনলাইনে মূল্যায়নের জন্য Goggle Forms-এর ব্যবহার সবচেয়ে জনপ্রিয়। কাজ সাবমিট করার জন্য Messenger Group, Whatsapp Group, Goggle Classroom, Surveymonky সহ বিভিন্ন প্লাটফরম ব্যবহার করা যায়।
 শিক্ষার্থীর প্রশ্নের ফিডব্যাক প্রদান
যে স্মার্ট ফোনকে লাইভ কাস্ট ক্যামেরা হিসেবে ব্যবহার করবেন সেটি ছাড়া অন্য আর একটি ফোন বা ডিভাইসকে (যথা: ট্যাব বা ল্যাপটপ বা পিসি) ফিডব্যাক প্রদানের জন্য ব্যবহার করুন। পাঠের মাঝখানে ফিডব্যাক প্রদান না করে শেষের দিকে ২/৩ মিনিট বরাদ্দ রাখুন। শুধু উল্লেখযোগ্য কমেন্টগুলোর ফিডব্যাক প্রদান করুন। যে কমেন্টগুলোর ফিডব্যাক প্রদান করেননি সে গুলো পাঠ শেষে দেবেন বলে জানিয়ে রাখুন।
 সর্বোপরি
‌প্রমিত বাংলা উচ্চারণে ক্লাস পরিচালনা করুন। আঞ্চলিক ভাষা, শব্দ বা আঞ্চলিক টোন পরিচালনা করুন। ‌ইংরেজি বিষয়ের ক্লাস পরিচালনায় ইংরেজিতে লেকচার দিতে চেস্টা করুন। টেকনিক্যাল শব্দ (ইংরেজিতে, আরবী বা অন্য ভাষা) স্ব স্ব ভাষায় দিতে হবে। বইয়ের সংজ্ঞা সরাসরি না দিয়ে উল্লেখযোগ্য শব্দ বা কী ওয়ার্ড ব্যাখ্যা করে সংজ্ঞা ব্যাখ্যা করুন। পাঠাদানে অবশ্যই সরকারি নীতিমালা অনুসরণ করুন। কোন ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক দিবেন না।
 পাঠ শেষে
আপনার রেকর্ডকৃত ক্লাসটি ইউটিউবে আপলোড করে দিন যেন পরবর্তীতে আপনার ডিজিটাল ফুটপ্রিন্ট হিসেবে থাকবে। একটি অনুপ্রেরণমূলক / শিক্ষণীয় / সচেতনতামূলক / প্রেরণাদায়ী বার্তা দিয়ে ক্লাস শেষ করুন।
সম্মানিত শিক্ষকগণ অনেক কষ্ট ও ত্যাগ স্বীকার করে এক একটি ক্লাস প্রস্তুত ও পরিচালনা করছেন। তাঁদের কাজের সমালোচনা না করে গঠনমূলক পরামর্শ প্রদান করলে পরিশ্রমী এ শিক্ষকগণ আরো উৎসাহিত বোধ করবেন। এ ছাড়া তাঁদের কাজের স্বীকৃতি হিসেবে সংশ্লিষ্ট অনলাইন স্কুল থেকে এবং সম্ভব হলে সরকারিভাবে কোন ‘লেটার অব এপ্রিসিয়েশন’ দেওয়া যায় কিনা তা ভেবে দেখা যায়।
একই বিষয়বস্তু নিয়ে কয়েকটি অনলাইন স্কুলে পাঠদান হচ্ছে। আবার ইতোমধ্যে পাঠদান হয়ে গেছে এমন বিষয়বস্তুও পুণরায় পাঠ দান হচ্ছে। তাছাড়া, বইয়ের শেষ দিক থেকেও কিছু পাঠদান লক্ষ্য করা যাচ্ছে। বিষয়টি সমন্বয় করা দরকার।
এটি কোন রেসিপি নয়। আলোচ্য বিষয়গুলো অক্ষরে অক্ষরে অনুসরণ করাও অত্যাবশ্যকীয় বা জরুরী নয়। সমস্যায় পড়লে প্রয়োজনে বিজ্ঞ শিক্ষক বা সহকর্মীর পরামর্শ নিন।
আসুন আমরা সবাই মিলে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা-৪ (Sustainable Development Goal-4, SDG4) ও ভিশন ২০৪১ অর্জনে সরকারি উদ্যোগের পাশাপাশি ব্যক্তিগত ও সামস্টিক উদ্যোগের মাধ্যমে এ কাজটিকে আরো বেগবান করি।
সকলের অনলাইন ক্লাস পরিচালনা সুন্দর ও মানসম্মত হোক সেই প্রত্যাশায় থাকবো।
ধন্যবাদ।

লেখক
আকতার হোসেন কুতুবী
সহযোগী অধ্যাপক
সরকারী টিচার্স ট্রেনিং কলেজ
চট্টগ্রাম

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Facebook Comments