এমপিও শীটে তথ্য সংশোধন : প্রয়োজনীয় কাগজপত্র এবং আবেদন নিয়ম

25023

এমপিও শীটে তথ্য সংশোধন : প্রয়োজনীয় কাগজপত্র এবং আবেদন নিয়ম

বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত শিক্ষক-কর্মচারীদের এমপিও শীট থেকে অনাকাঙ্খিত ভাবে বিভিন্ন তথ্য ভুল হয়ে গেলে মারাত্মক বিড়ম্বনায় পড়তে হয়। এমপিও শীটে তথ্য সংশোধন কিভাবে করবে বা কি কি কাগজপত্র লাগবে তা নিয়ে ভয়ানক জটিলতা পড়তে হয়। এমপিও শীটে তথ্য সংশোধন নিয়ে আজকে আমাদের টিউন;

আজকের টিউনে আপনারদের জানানোর চেষ্টা করবো কিভাবে এমপিও শীটে তথ্য সংশোধন আপনার নাম, বয়স ও অন্যান্য তথ্য সংশোধন করবেন।

এমপিও শীট সংশোধনে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের তালিকা-

১. প্রতিষ্ঠান প্রধানের অগ্রায়নপত্র:

এমপিও শীট থেকে আপনার নাম, বয়স বা অন্যান্য তথ্য সংশোধনের জন্য আপনার প্রতিষ্ঠান প্রধান থেকে মহাপরিচালক বরাবর একটি অগ্রায়নপত্র লাগবে। যেখানে আপনার এমপিও শীটে তথ্য সংশোধন স্বপক্ষে যুক্তি সংঙ্গত প্রস্তাব করবেন মহাপরিচালকের বরাবর

২. ব্যাংক একাউন্ট এর স্লীপ ও ব্যাংক প্রত্যয়নপত্র:

আপনার নামে থাকা ব্যাংক একাউন্টে টাকা জমা দেওয়ার একটি স্লীপ এবং ব্যাংক থেকে একটি একাউন্ট সম্পর্কিত একটি প্রত্যয়নপত্র

৩. নিয়োগপত্র (আসল কপির স্ক্যান কপি):

আপনার নিয়োগকালীন সময়ে প্রতিষ্ঠান থেকে প্রদত্ত নিয়োগপত্রটি স্ক্যাণ করে আবেদনের সাথে সংযুক্ত করতে হবে।

৪. প্রতিষ্ঠানের শেষ স্বীকৃতির কপি:

অনলাইনে আবেদন সাবমিট করার জন্য আপনি যে প্রতিষ্ঠানে বর্তমানে কর্মরত আছেন সেই প্রতিষ্ঠানের সর্বশেষ স্বীকৃতি নবায়নের কপি প্রয়োজন হবে।

৫. নিয়োগ কালীন কমিটি অনুমোদনের কপি:

আপনার নিয়োগ কালীন সময়ে প্রতিষ্ঠানে যে কমিটি বিদ্যমান ছিল ওই কমিটি অনুমোদনের কপি আবেদনের সাথে সংযুক্ত করতে হবে।

৬. পরিচালনা কমিটির সভার অধিবেশন এর রেজুলেশন কপি:

এমপিও শীটে তথ্য সংশোধন জন্য পরিচালনা কমিটির সভা আহবান করতে হবে এবং ওই সভায় গৃহীত সিদ্ধান্ত কফি আবেদনের সাথে সংযুক্ত করতে হবে।

৭. পূরণকৃত তথ্য সংশোধনের ফর্ম:

এমপিও শীটে তথ্য সংশোধন এ আপনার নাম্বার অন্যান্য তথ্য সংশোধনের জন্য একটি ফরম রয়েছে সেই ফরমটি পূরণ করে আবেদনের সাথে সংযুক্ত করতে হবে

৮. এসএসসি সমমান পরীক্ষার সনদ:

আবেদনের সাথে আপনার এসএসসি সমমানের পরীক্ষার মূল কপির স্ক্যান কপি সংযুক্ত করতে হবে

৯. এইচএসসি সমমানের সনদ:

আপনার এইচএসসি অথবা দাখিল পরীক্ষার সনদ মূল কপি স্ক্যান করে সংযুক্ত করতে হবে।

১০. স্নাতক, স্নাতকোত্তর, বিএড, এম এড সহ অন্যান্য সনদ:

স্নাতক স্নাতকোত্তর সহ আপনার যে সকল সনদপত্রের রয়েছে সবগুলোই স্ক্যান কপি আবেদনের সাথে সংযুক্ত করতে হবে।

১১. প্রফেশনাল সার্টিফিকেট:
আপনার চাকরির তথ্য সম্বলিত পেশাগত সনদ আবেদন এর সাথে সংযুক্ত করতে হবে।

১২. যোগদান পত্র (অরিজিনাল):
আপনার প্রতিষ্ঠান যোগদান পত্র টি মূল কপি স্ক্যান করে আবেদনের সাথে সংযুক্ত করতে হবে।

১৩. শিক্ষক-কর্মচারীর তথ্য বিবরণী:
আপনার কর্মরত বর্তমান প্রতিষ্ঠান শিক্ষক কর্মচারী তথ্য বিবরণী ফরম পূরণ সাপেক্ষে আবেদনের সাথে সংযুক্ত করতে হবে।

১৪. সাবজেক্ট অ্যাপ্রভাল বা সেকশন ওপেনিং লেটার:
আপনি যে বিষয়ে কর্মরত আছেন সেই বিষয়ে আপনার প্রতিষ্ঠান বিষয় খোলার অনুমতি পত্র অথবা সেকশন খোলার অনুমতি পত্রের অরিজিনাল কপি স্ক্যান করে সংযুক্ত করতে হবে।

১৬. অন্যান্য কাগজপত্র:
আপনার এমপিও শীটে তথ্য সংশোধন স্বপক্ষে অন্য কোনো কাগজপত্র থাকলে সেটা অন্যান্য কাগজপত্র সেকশনে আপলোড করবেন।

উপরে প্রদত্ত কাগজপত্র গুলো সঠিকভাবে সংগ্রহ করে অনলাইনে আবেদন করার জন্য প্রস্তুতি নিবেন।

নিজে অনলাইনে আবেদন করতে পারলে ভালো আর নিজে আবেদন না করতে পারলে দক্ষ কাউকে দিয়ে অনলাইনে আবেদন করে নিবেন।

প্রথম ধাপ: অনলাইনে আবেদন এর প্রথম ধাপে আপনি প্রয়োজনীয় কাগজপত্র গুলো সংগ্রহ করবেন এবং সেগুলো স্ক্যান করে কম্পিউটারে সেভ করে নিবেন।

ইউজার ও পাসওয়ার্ড যেভাবে পাবেন:

ইউজার পাসওয়ার্ড আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রধানের কাছ থেকে সংগ্রহ করবেন। কোন কারণে আপনার প্রতিষ্ঠান প্রধানের কাছে পাসওয়ার্ড না থাকে তাহলে আপনার জেলার প্রোগ্রামার এর সাথে যোগাযোগ করে পাসওয়ার্ড সংগ্রহ করবেন।

এমপিও শীটে তথ্য সংশোধন অনলাইনে আবেদন সাবমিট:
অনলাইনে আবেদন সাবমিট করার জন্য আপনি প্রথম emis.gov.bd এর ওয়েব সাইটে প্রবেশ করবেন। এখানে প্রবেশ করার পর Login বাটনে ক্লিক করে আপনার প্রতিষ্ঠানে এমপিও পোর্টালের User Name এবং Password দিয়ে লগইন করবেন।

ইউজার ও পাসওয়ার্ড সঠিক থাকলে আপনি পরবর্তী পেইজে প্রবেশ করবেন। এখান থেকে HRM, IMS ও MPO মিনু থেকে MPO অপশন নির্বাচন করুন।

MPO অপশনে ক্লিক করার পর আপনি MPO Portal এর প্রবেশ করবেন। এখানে এমপিও সংক্রান্ত যাবতীয় অপশন দেখতে পাবেন।

এই অপশগুলো থেকে Correction বাটনে ক্লিক করবেন। (যেহেতু আমরা একটি সংশোধন এর আবেদন করবে চাই)

Correction বাটনে ক্লিক করার পর এমপিও শীট কারেকসান এর অনলাইন আবেদন ফরম চালু হবে।

এখানে মোট ছয়টি ধাপে আপনার এমপিও সংশোধনের আবেদন সম্পন্ন করতে হবে।

ধাপ-০১:

এই ধাপে আপনি আপনার ব্যক্তিগত সাধারণ তথ্য ও যা যা সংশোধন করতে চান সেই সংক্রান্ত তথ্য ইনপুট করবেন।

প্রথমে ‘শিক্ষক/কর্মচারী’ সার্চ বাটনে ক্লিক করে আপনার প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীদের তালিকা থেকে আপনার নামটি Select করবেন।

নির্বাচন করার সাথে সাথে সয়ংক্রিয়ভাবে EMIS পোর্টালে থাকা তথ্য থেকে আপনার তথ্যগুলো চলে আসবে।

এখান থেকে যা সংশোধন করতে চান সেই অপশনটির পাশের চেক বক্সে ক্লিক করবেন;

মনে করুন আমি নাম সংশোধন করতে চাই তাহলে নামের পাশে থাকা চেক বক্সে ক্লিক করলে

আবেদনকারীর বর্তমান নাম (ইংরেজিতে) : [Your Name in English]
আবেদনকারীর বর্তমান নাম (বাংলায়): [আপনার নাম বাংলায়]

প্রদর্শন করবে। বর্তমান নামে পাশেই থাকবে প্রত্যাশিত নামের বক্স;

এখানে আপনার প্রত্যাশিত নাম (ইংরেজিতে) এবং প্রত্যাশিত নাম (বাংলায়) লিখবেন।

অন্যান্য তথ্যগুলো আপনি দেখতে পাবেন কিন্তু কোন তথ্য সংযুক্ত করার সুযোগ নেই। তথ্য সংযুক্তি করতে আপনাকে PDS আপডেট করে নিতে হবে।

আপনি চাইলে নিচে উল্লেখিত তথ্যগুলো সংশোধন করতে পারবেন-

১. নাম, ২. জন্মতারিখ, ৩. ব্যাংকের হিসাব নম্বর, ৪. পে-কোড, ৫. পদবি সংশোধন, ৬. বিষয় সংশোধন

আপনি যা সংশোধন করতে চান সেটি পূরণ করে Next বাটনে ক্লিক করবেন;

ধাপ-০২:

এই ধাপে আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা সংক্রান্ত তথ্য দিতে হবে। এখানে শিক্ষাগত যোগ্যতা লেখার নিচে প্লাস বাটনে ক্লিক করলে শিক্ষাগত যোগ্যতা তথ্য সংযুক্ত করার এর সাব ফরম আসবে-

*পরীক্ষার নাম, রোল নম্বর, সেশন/শিক্ষাবর্ষ, *পাশের বছর, বোর্ড / বিশ্ববিদ্যালয়, ফলাফল প্রকাশের তারিখ, গ্র্রুপ, বিষয়, ফলাফলের ধরন, বিভাগ/শ্রেণি/গ্রেড, প্রাপ্ত নম্বর/সিজিপিএ

এই তথ্যগুলো দিয়ে যোগ করুন বাটনে ক্লিক করলে আপনার তথ্যটি সংরক্ষণ হয়ে যাবে।

এভাবে আপনার সবগুলো শিক্ষাগত যোগ্যতা তথ্য সংযুক্ত করে নিবেন। কোন কারণে ভুল তথ্য এন্ট্রি দিলে এডিট বাটনে ক্লিক করে সংশোধন করে নিতে পারবেন।

শিক্ষাগত যোগ্যতা সংক্রান্ত তথ্য যোগ করে Next বাটনে ক্লিক করুন;

ধাপ-০৩:

এই ধাপে আপনার পেশাগত তথ্য, এসএমসি অথবা জিবি, দিতে হবে। পেশাগত তথ্য (পিডিএস অনুযায়ী) সয়ংক্রিয় ভাবে প্রদর্শন করবে।

আপনার তথ্যগুলো সংশোধন করতে পিডিএস আপডেট করতে হবে। তথ্যগুলো দেওয়ার পর Next বাটনে ক্লিক করুন।

ধাপ-০৪:

এই ধাপে আপনার সংশোধন সংক্রান্ত রেজুলেন এর বিবরণ সহ উল্লেখ করতে হবে।

রেজুলেশন + বাটনে ক্লিক করলে রেজুলেশন বিবরণ সংযুক্ত করার ফরম আসবে। এখান থেকে-

রেজুলেশন এর নাম, রেজুলেশন তারিখ, মিটিং নম্বর, মিটিং বিবরণ দিয়ে যোগ করুন বাটনে ক্লিক করুন।

এভাবে একাধিক রেজুলেশন সংযুক্ত করতে পারবেন।

ধাপ-০৫:

এই ধাপে আপনার প্রতিষ্ঠানের বর্তমান শিক্ষার্থীর সংখ্যা দেখাবে। আপনি চাইলেই এটা যোগ করতে পারবেন না। এটা সয়ংক্রিয়ভাবে IMS থেকে দেখাবে।

ধাপ-০৬:

এই ধাপটি হল আপনার তথ্য সংযুক্ত করার ধাপ। আপনার যেসকল কাজগপত্র লাগবে তা আপলোড করবেন এই ধাপে।

যে ধরণের ফাইল আপলোড করতে চান তার নামের উপর ক্লিক করলে আপলোড ফরম চালু হবে।

এখানে ফাইল নির্বাচন করে সংরক্ষণ করবেন।

উপরোক্ত কার্যাবলি সঠিক ভাবে সম্পন্ন করার পর প্রতিষ্ঠান প্রধানের মন্তব্য উল্লেখ করে সাবমিট বাটনে ক্লিক করবেন।

অনলাইন আবেদনের পরবর্তী ধাপে আপনি আপনার অনলাইনে সাবমিটকৃত আবেদনপত্র সম্পর্কে প্রতিষ্ঠান প্রধান এর সাথে সমন্বয় করে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারের সাথে যোগাযোগ করে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার কে বিষয়টি অবহিত করবেন।

আমাদের এই টিউনটি ভাল লেগে থাকলে অবশ্যই পোস্টটি শেয়ার করে দিবেন

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Facebook Comments