কুমিল্লার দক্ষিন শ্যামপুর আ.নে.ভূঁইয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে অবৈধ নিয়োগে এমপিও আবেদন

3146

কুমিল্লার দক্ষিন শ্যামপুর আ.নে.ভূঁইয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে অবৈধ নিয়োগে এমপিও আবেদন

কুমিল্লা জেলার বুড়িচং উপজেলায় ৫নং পীরযাত্রাপুর ইউনিয়নের আওতাধীন দক্ষিন শ্যামপুর আলি নেওয়াজ ভূঁইয়া কারিগরি উচ্চ বিদ্যালয়ে অবৈধ নিয়োগে প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকের এমপিও জন্য অনলাইনে কাগজপত্র প্রেরণ প্রসঙ্গে।

কুমিল্লা জেলার বুড়িচং উপজেলায় ৫নং পীরযাত্রাপুর ইউনিয়নের অন্তর্ভুক্ত সদ্য এমপিও নিম্ন মাধ্যমিক জিও প্রাপ্ত দক্ষিণ শ্যামপুর আলি নেওয়াজ ভূঁইয়া কারিগরি উচ্চ বিদ্যালয় (ইআইআইএন ১০৫২৯১) সভাপতি মোঃ নজির আহাম্মদ ভূঁইয়া ৪ লক্ষ ১০ হাজার টাকা করে প্রধান শিক্ষক ও তিন জন সহকারী শিক্ষকের নিয়োগ প্রদান করে। উল্লেখ্য যে, এমপিও জিও পাওয়ার পর তড়িঘড়ি করে নিয়োগ বোর্ড ছাড়া ডিজির প্রতিনিধির ভূয়া সীল নিজেই ব্যবহার করে নিয়োগ বোর্ড,নিয়োগপত্র, নিয়োগ পরীক্ষার নম্বর পত্রে স্বাক্ষর করে ও স্কুলের পুরাতন রেজুলেশন বাদ দিয়ে নতুন করে লিখে ২৬/০১/২০০৫ তারিখে দেখিয়ে কাম্য যোগ্যতা নিবন্ধন ও বিএড বিহীন স্নাতক পাসে মোঃ রুকুনুজ্জামান, পিতা: মোঃ সামসুল হক, গ্রাম : কন্ঠনগর, বুড়িচং নামে এক ডলার ব্যবসায়ী (হুণ্ডি ব্যবসায়ী) একাধিক সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজি মামলার আসামি ও মানুষ থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা মানুষ কে চাকুরী দেয়া ও বিদেশ পাঠানো নামে হাতিয়ে নিয়েছে এমন ব্যক্তিকে নিয়োগ প্রদান করে, এদিকে ২৬/০১/২০০৫ সালে বৈধ নিয়োগপ্রাপ্ত জনাবা নাছিমা আক্তার(প্রতিবন্ধী), সহকারী শিক্ষক (সমাজবিজ্ঞান) প্রায় ১৭ বছর যাবত বিনা টাকায় শ্রম দিয়ে শিক্ষকতা করছেন, এমপিও জিও হওয়ার পর বেতন ভাতার জন্য অনলাইন করার জন্য কাগজ পত্র দিলে তার কাগজপত্র গোপন করে তার স্থলে সভাপতি নজির আহাম্মদ এর ভাতিজি হাছিনা আক্তার রুমি নামে এক মেয়েকে নিয়োগ দেখিয়ে এমপিওর জন্য কাগজ পত্র অনলাইন করে, ইতিমধ্যে গরিব, প্রতিবন্ধী শিক্ষিকা নাছিমা আক্তার গ্রামের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের ধারে ধারে গিয়ে কান্না করছে, কেউ এগিয়ে আসছে না, এভাবে বুড়িচং উপজেলার বুড়িচং গ্রামের পশ্চিম পাড়ার জমির আহাম্মদ নামে এক ব্যক্তি কুমিল্লা মর্ডান হাইস্কুলে ননএমপিও পদে দীর্ঘদিন ধরে চাকুরী করে আসছে তাকে শারীরিক শিক্ষা শিক্ষক ও অন্য একজনকে গনিত বিষয়ের সহকারী শিক্ষক পদে নিয়োগ বোর্ড ছাড়া বৈধ নিয়োগের বিপরীতে অর্থের লোভে নিয়োগ দিয়ে এমপিওর জন্য কাগজ পত্র অনলাইন করছে।

——————————————————————-

📌📌শিক্ষা সম্পর্কিত খবরাখবর জানতে এখানে ক্লিক করে শিক্ষা গ্রুপে ঢুকে JOIN GROUP এ  ক্লিক করুন।গ্রুপে আপনিও শেয়ার করুন…

——————————————————————-

👉👉দৈনন্দিন শিক্ষা সম্পর্কিত খবরাখবর পেতে এখানে ক্লিক করে দৈনিক শিক্ষা সংবাদ পেইজে ঢুকে ” LIKE PAGE ” 👍 এ লাইক দিন

——————————————————————-

এমতাবস্থায় জনাবা নাছিমা আক্তার কেন অবৈধ শিক্ষক নিয়োগ বাতিল করে বৈধ শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হবে না? এমন প্রশ্নে জেলা শিক্ষা অফিসার, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার বরাবর অভিযোগ পত্র দাখিল করেন, এ দিকে ২৬/০১/২০০৫ সালে বৈধ নিয়োগকৃত প্রধান শিক্ষক জনাব মোঃ আবদুল বারি ভূঁইয়া অবৈধ নিয়োগের বিষয়টি লিখিত আকারে জেলা শিক্ষা অফিসার, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বরাবর অভিযোগ পত্র দাখিল করে বলেন যে বিষয়টি মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, জেলা শিক্ষা অফিসার ও মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এবং অন্যান্য প্রশাসন কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপ কামনা করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। উল্লেখ্য যে, জনাবা নাছিমা আক্তারের গত ০৪-০৫-২০২০ খ্রি.তারিখে
আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ০৫/০৫/২০২০ খ্রি.তারিখে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের কার্যালয় থেকে তদন্ত শুনানীতে আগামী ০৭/০৫/২০২০ খ্রি. বেলা ১২ ঘটিকায় সাক্ষ্যপ্রমাণাদিসহ সভাপতি, প্রধান শিক্ষক ও ভূক্তভোগী নাছিমা আক্তারকে উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

বিনীত,

জনাবা নাছিমা আক্তার
সহকারী শিক্ষক (সমাজবিজ্ঞান) ,
দক্ষিণ শ্যামপুর আলি নেওয়াজ ভূঁইয়া কারিগরি উচ্চ বিদ্যালয়, উপজেলা: বুড়িচং, জেলা : কুমিল্লা।

 

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Facebook Comments