দুই মাসের বাড়ি ভাড়া মওকুফ করার আহ্বান (বাশিস – নজরুল)

876

দুই মাসের বাড়ি ভাড়া মওকুফ করার আহ্বান (বাশিস – নজরুল)

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে সারা বিশ্বে আজ অচলাবস্থা। অর্থনৈতিক ভাবে বিপর্যস্ত। বাংলাদেশেও তার প্রভাব পড়েছে। আজ সারা বাংলাদেশের কোথাও কাজ করার পরিবেশ নেই। বর্তমান সময়ে বাংলাদেশ করোনা ভাইরাসের থাবায় জনজীবনে স্থবিরতা এসে গেছে। প্রতিটি পেশার মানুষ সহ সকল শ্রেণির মানুষ আজ মহাবিপদের মধ্যে আছে। কাজ নেই, আয়ের উৎস নেই। সবার এখন আয়ের উৎসের সকল কার্যক্রম বন্ধ। জীবন সচল রাখার জন্য প্রয়োজন টাকার। সংসারের ভরণপোষণ করার জন্য প্রয়োজন টাকার। অনেক লোক আছে যারা দিন আনে দিন খায়। কাজ ছাড়া ঘরে খাবার জুটে না। রিক্সা চালক, ভ্যান চালক, ফুটপাতের ব্যবসায়ী, ক্ষেতে খামারে কাজ করা শ্রমিক, বিভিন্ন শিল্প কলকারখানায় কাজ করা শ্রমিক সহ বিভিন্ন পেশায় সংযুক্ত সকলের অবস্থা প্রায় একই। বর্তমান সময়ে তাদের সেই আয়ের উৎসও বন্ধ। ব্যয় আছে আয় নেই। যতই দিন অতিবাহিত হচ্ছে ততই তাদের জীবন যাপন কঠিন থেকে কঠিনতর হচ্ছে। আর যারা বিভিন্ন পেশার সাথে সংযুক্ত তাদের ও নেই বাড়তি আয়। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে সারা বাংলাদেশে চলছে লকডাউন। লকডাউনের কারণে সকল পেশার এবং সকল শ্রেণির মানুষের কাজ করার স্বাভাবিক পরিবেশ আর নেই। যার মাধ্যমে হবে অর্থনৈতিক ভাবে স্বাবলম্বী। প্রায় প্রতিটি মানুষের বাস্তব জীবন নাভিশ্বাস হয়ে উঠেছে জীবন ধারণে। অনেকের আবার নুন আনতে পানতা ফুরায় অবস্থা। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ থাকার কারণে দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতি তো আছেই। সব প্রয়োজন মেটানোর পর প্রত্যেকের হাত প্রায় শূন্য। প্রত্যেক পেশার মানুষের জীবন আজ দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। যারা বাসা ভাড়া নিয়ে থাকতে হচ্ছে তারা আছেন মহাবিপদে। বর্তমান সময়ে বাসা ভাড়া দিতে হিমশিম খাচ্ছেন ভাড়াটিয়ারা। বাড়িওয়ালা ভাড়ার জন্য চাপ দিচ্ছে প্রতিনিয়ত। ভাড়া পরিশোধ কর নতুবা বাসা ছেড়ে দাও এমন সংবাদ ও পাওয়া যাচ্ছে। আজকাল মনে হচ্ছে বাড়িওয়ালারা মানুষের দুঃখ দুর্দশার কথা ভুলে গেছে। এমতাবস্থায় যারা বাসা ভাড়া করে থাকেন তাদের দুই মাসের বাড়ি মওকুফ করা অতীব গুরুত্বপূর্ণ। আগে মানুষের জীবন বাঁচানো ফরজ পরে ভাড়া এমনটাই আশা করতে পারেন ভাড়াটিয়ারা। কিন্তু দুঃখের বিষয় বর্তমানে দেখা যাচ্ছে সম্পূর্ণ তার বিপরীত। যারা ভাড়া বাড়ি ছেড়ে নিজ গ্রামের বাড়িতে চলে এসেছেন তাদেরকে ভাড়া পরিশোধ করার জন্য মোবাইলে ফোন করা হচ্ছে। চাপ দেওয়া হচ্ছে ভাড়া বিকাশে পাঠিয়ে দেওয়ার জন্য। প্রায় প্রত্যেকের হাত শূন্য এমতাবস্থায় ভাড়া পরিশোধ করবে কীভাবে ভাড়াটিয়া? মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেখলাম ভাড়া মওকুফ করার জন্য বাড়িওয়ালাদের প্রতি আহবান করেছেন কিন্তু হাতে গুণা কয়েক বাড়িওয়ালা ভাড়া মওকুফ করেছেন। অধিকাংশ বাড়িওয়ালা তা মানছেন না। বাড়ি ভাড়া পরিশোধ করলে এমতাবস্থায় মানুষ বাঁচবে কীভাবে? যেখানে আয়ের উৎস বন্ধ। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে হাতে অনেক পদক্ষেপ নিয়েছেন। ত্রাণ দিচ্ছেন। করোনা মোকাবেলা করার জন্য সকলের ঘরে খাবার পৌঁছে দেওয়া হবে এমন ঘোষণা দিয়েছেন। বাস্তবে রুপ দেওয়ার জন্য কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সহ দায়িত্ব প্রাপ্ত সকলে। দেশের এই দুঃসময়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাহসী পদক্ষেপকে অভিনন্দন জানাই বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির পক্ষ থেকে। কিছু স্বার্থান্বেষী লোকের কারণে তা আজ ম্লান হওয়ার পথে। সকলে পাচ্ছে না ত্রাণ। নিম্ন আয়ের এবং মধ্যম আয়ের মানুষ আজ চরম হতাশায় জীবন যাপন করতে হচ্ছে।

——————————————————————-

📌📌শিক্ষা সম্পর্কিত খবরাখবর জানতে এখানে ক্লিক করে শিক্ষা গ্রুপে ঢুকে JOIN GROUP এ  ক্লিক করুন।গ্রুপে আপনিও শেয়ার করুন…

——————————————————————-

👉👉দৈনন্দিন শিক্ষা সম্পর্কিত খবরাখবর পেতে এখানে ক্লিক করে দৈনিক শিক্ষা সংবাদ পেইজে ঢুকে ” LIKE PAGE ” 👍 এ লাইক দিন

——————————————————————-

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট বিনীত অনুরোধ রইল, আপনি সকল পেশার মানুষের জন্য কমপক্ষে এই দুর্দিনে দুই মাসের বাড়ি ভাড়া মওকুফ করার জন্য একটি আদেশ জারি করুন যাতে বাড়িওয়ালারা দুই মাসের বাড়ি ভাড়া মওকুফ করতে বাধ্য হয়। আপনার এই অবদান চিরদিন মনে রাখবে হতাশাগ্রস্ত সকলে।

ধন্যবাদান্তে
মোঃ আবুল হোসেন
সিনিয়র যুগ্ম -মহাসচিব
বাশিস (কেন্দ্রীয় কমিটি)
শ্রীনগর, মুন্সিগঞ্জ
০১৯১৬২৯২৪৮৩

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Facebook Comments