নতুন এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠানের এমপিও কোড,আইডি ও পাসওয়ার্ড

3716

নতুন এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠানের এমপিও কোড,আইডি ও পাসওয়ার্ড

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সদয় সম্মতিক্রমে গত ১৯/০৪/২০২০ তারিখে স্বাক্ষরিত মন্ত্রণালয়ের আদেশ বলে দেশের সহস্রাধিক স্কুল ও কলেজ নতুনভাবে এমপিওভুক্ত হয়েছে/এমপিও স্তর পরিবর্তন হয়েছে।

——————————————————————-

📌📌শিক্ষা সম্পর্কিত খবরাখবর জানতে এখানে ক্লিক করে শিক্ষা গ্রুপে ঢুকে JOIN GROUP এ  ক্লিক করুন।গ্রুপে আপনিও শেয়ার করুন…

——————————————————————-

👉👉দৈনন্দিন শিক্ষা সম্পর্কিত খবরাখবর পেতে এখানে ক্লিক করে দৈনিক শিক্ষা সংবাদ পেইজে ঢুকে ” LIKE PAGE ” 👍 এ লাইক দিন

——————————————————————-

যে সকল প্রতিষ্ঠানের শুধু স্তর পরিবর্তন হয়েছে অর্থাৎ এমপিওতে জুনিয়র থেকে মাধ্যমিকে উন্নিত হয়েছে, সেগুলোর এমপিও কোড পুর্বের জুনিয়র কোডই বহাল রাখা হয়েছে। সফটওয়ারের মধ্যে তাদের এমপিও স্তর পরিবর্তন করে দেয়া হয়েছে যা আবেদনকারীগণ আবেদনের সময় আবেদন ফরমে দেখতে পাবেন এবং যাচাই বাছাইকারী কর্মকর্তাগণও যাচাই বাছাইকালে এমপিও আবেদনের মধ্যে দেখতে পারবেন।

অন্যদিকে যে সকল স্কুল ও কলেজ এবারই নতুনভাবে এমপিওভুক্ত হয়েছে তাদের জন্য নতুন এমপিও কোড বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। প্রতিষ্ঠানের EIIN নম্বরের শেষে অতিরিক্ত দুটি ডিজিট যোগ করে মোট আট ডিজিটের নতুন এমপিও কোড তৈরী করা হয়েছে। অতিরিক্ত দুটি ডিজিট ঐ প্রতিষ্ঠানের এমপিও স্তর নির্দেশ করবে। যেমন: অতিরিক্ত দুটি ডিজিট ১২ হলে বুঝতে হবে প্রতিষ্ঠানটি জুনিয়র স্তর পর্যন্ত এমপিওভুক্ত। একইভাবে ১৩ দ্বারা মাধ্যমিক ও ৩১ দ্বারা উচ্চ মাধ্যমিক কলেজ বুঝাবে।

যে সকল মাধ্যমিক বিদ্যালয় উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের স্তর এমপিওভুক্ত হয়েছে তাদের মাধ্যমিকের জন্য পুর্বের কোড বহাল রেখে উচ্চ মাধ্যমিকের জন্য বর্ণিত নতুন পদ্ধতিতে এমপিও কোড দেয়া হয়েছে।

আর কিছু প্রতিষ্ঠান সরাসরি ৬ষ্ট থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত একবারে এমপিও এর আদেশ প্রাপ্ত হয়েছে। তাদের জন্য ঐ প্রতিষ্ঠানের EIIN নম্বরের সাথে ১৩ যুক্ত করে মাধ্যমিকের কোড এবং EIIN নম্বরের সাথে ৩১ যুক্ত করে উচ্চ মাধ্যমিকের কোড প্রদান করা হয়েছে।

সকল প্রতিষ্ঠানেন এমপিও ইউজার আইডি পুর্বের ন্যায় mpo_EIIN NUMBER এবং পাসওয়ার্ড 17032020 রাখা হয়েছে। প্রতিষ্ঠান প্রধান লগ ইন করে পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করে নিতে পারবেন। এবারই প্রথম প্রচলিত এমপিও কোড এর বাইরে নতুন পদ্ধতিতে কোড প্রদান করা হয়েছে। এতে অনেকের বুঝতে সাময়িক অসুবিধা হতে পারে।

উল্লেখ্য যে, রেজিষ্ট্রেশনের সময়ের ইমেইল পদ্ধতি এবার বাতিল করে রেজিস্ট্রশন প্রক্রিয়াকে সহজতর করা হয়েছে। অর্থাৎ আবেদনকারী রেজিষ্ট্রেশনের জন্য আবেদন করলে তা সরাসরি প্রতিষ্ঠান প্রধানের কাছে চলে যাবে। কোন ইমেইল ভেরিফিকেশন লাগবে না। প্রতিষ্ঠান প্রধান রেজিষ্ট্রেশন অনুমোদন স্বাপেক্ষে উক্ত শিক্ষক/কর্মচারীর জন্য এমপিও আবেদন করবেন।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Facebook Comments