বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ ঘোষণা

42008

মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকপর্যায়ের এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ করা হলে সরকারের কোষাগার থেকে অতিরিক্ত কোনো টাকা খচর হবে না বলে দাবি এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের। তাদের মতে, যদি শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে যৌক্তিক পরিমাণ বেতন আদায় করে তাহলে তা দিয়েই শিক্ষকদের বেতন প্রদান করা সম্ভব। শিক্ষকেরা বলেন, সরকার এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের ২০১৫ সালের বেতন স্কেল অনুযায়ী মূল বেতনের শতভাগ প্রদান করে, সরকার বেসরকারি এসব স্কুল কলেজের আয় থেকে একটি টাকাও পায় না। অথচ অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ছাত্র বেতন, ভর্তি ফি, সেশন চার্জবাবদ বিপুল অর্থ আদায় করে থাকে।
শিক্ষকদের দাবি, জাতীয়করণ করলে সবচেয়ে বেশি লাভবান হবে সাধারণ মানুষ, যাদের এখন বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বিশেষ করে শহরে লেখাপড়ার পেছনে বিপুল অঙ্কের অর্থ ব্যয় করতে হয়। জাতীয়করণের ফলে শিক্ষায় বিরাজমান বৈষম্য, বিশৃঙ্খলা দূর হবে। শিক্ষা নিয়ে একশ্রেণীর মানুষের বাণিজ্য বন্ধ হবে। মেধাবীরা শিক্ষকতায় আসবে এবং নিশ্চিত হবে শিক্ষার মান।মুুুুজিবর্ষষে জাতীয়করণ চায় বেসরকারি শিক্ষষকরা

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Facebook Comments