সকল শিক্ষকদের জন্য বাধ্যতামূলক আইসিটি ডিগ্রি ও স্কেলের প্রয়োজনীয়তা

6264

♦সকল শিক্ষকদের জন্য বাধ্যতামূলক আইসিটি ডিগ্রি ও স্কেলের প্রয়োজনীয়তা

শিক্ষায় আইসিটির ব্যবহার কতটা প্রয়োজন তা আজ প্রতিটি ক্ষণে অনুভব করছে শিক্ষক-শিক্ষার্থী অভিভাবক সহ শিক্ষার সাথে সংশ্লিষ্ঠ সকলেই।
করোনার ভয়াল থাবায় লন্ডভন্ড পুরো বিশ্ব ।বিশ্বের প্রায় ১৮৫টি দেশে চলছে করোনার একক কর্তৃত্ব।হতবাক হয়ে চেয়ে আছে ইউরোপ আমেরিকা,বৃটেন,ফ্রান্স,ইতালি ও চীন সহ বিশ্ব কাপানো উন্নত দেশগুলো। সামান্য একটি ভাইরাসের কাছে হার মেনেছে পরমানবিক বোমায় সমৃদ্ধশালী এই সুপার পাওয়ার কান্ট্রিগুলো। লকডাউনের কারণে বের হতে পারছেনা শিশু,যুবক,বৃদ্ধ,নারী-পুরুষ কেউ।তাই বলে কি থেমে থাকবে জীবনের আলো শিক্ষা? না , উন্নত দেশগুলোতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও অনলাইনে চলছে পড়ালেখা।আমাদের দেশেও করোনার আগ্রাসান থেমে নেই।সংক্রামন ঠেকাতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে সরকারি-বেসরকারি সব প্রতিষ্ঠানে ।গত ১৭মার্চ বন্ধ ঘোষণা করা হয় বাংলাদেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।শিক্ষার্থীরা যাতে ক্ষতির সম্মুখীন না হয় সেজন্য উদ্যোগ নেওয়া হয় অনলাইনে শিক্ষা দেওয়ার ।তারই ধারাবাহিকতায় চালু করা হয় সংসদ টেলিভিশনে আমার ঘর,আমার স্কুল। ভিডিও ধারণকৃত এসব ক্লাস কতটুকু ফলপ্রসূ? একজন অভিভাবক জানান ছেলেকে টিভিতে ক্লাস দেখতে দিয়ে দশ মিনিট পরে এসে দেখে ছেলে স্পোর্টস চ্যানেল দেখছে।এই হল আমাদের অনলাইন শিক্ষা ব্যবস্থা।একজন প্রবীণ শিক্ষাবিদ এ প্রসঙ্গে বলেন শিক্ষক-শিক্ষার্থী পরস্পর তথ্য আদান প্রদান করতে না পারলে এ ক্লাস আনন্দদায়ক এবং ফলপ্রসূ হবেনা। এজন্য দরকার উন্নত দেশগুলোর মত গুগল ক্লাসরুম জুম,হ্যাংআউট ও স্কাইপসহ আধুনিক প্রযুক্তির মাধ্যমে ক্লাস নেওয়া।দুঃখজনক হলেও সত্য আমাদের দেশে এখনো এ পরিবেশ সৃষ্টি হয়নি।প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আইসিটি শিক্ষক বাধ্যতামূলক হলেও অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পদটি শূন্য। যেখানে আছে সেখানে একজন আইসিটি শিক্ষক দিয়ে অনলাইনে সব ক্লাস নেওয়া অসম্ভব ব্যাপার । এ জন্য দরকার প্রত্যেক শিক্ষককে আইসিটিতে দক্ষ করে তোলা । না হয় ভবিষ্যতে আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থা অনেক পিছিয়ে যাবে।বিশ্বের সাথে প্রতিযোগিতায় হেরে যাবে।শিক্ষকদেরকে আইসিটিতে দক্ষ করে গড়ে তুলার জন্য মাধ্যমিকে শিক্ষকতা করতে হলে যেমন বিএড ডিগ্রি প্রয়োজন ঠিক তেমনি শিক্ষকতায় আসার জন্য আইসিটি ট্রেনিং বাধ্যতামূলক করতে হবে। আইসিটির জন্য আলাদা স্কেল প্রদান করতে হবে।আইসিটিতে দক্ষ শিক্ষকদেরকে প্রণোদনা দিতে হবে।প্রতিষ্ঠান পরিচালনা ,প্রধান শিক্ষক সহকারী প্রধান শিক্ষক, সুপার ,সহকারী সুপার সহ প্রিন্সিপল ও ভাইস প্রিন্সিপল নিয়োগের ক্ষেত্রে আইসিটির উপর নাম্বার রাখতে হবে বলে মত দেন চট্টগ্রাম জেলা শিক্ষক অ্যাম্বাসেডরগন ।

♦দেশের করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে স্কুল কলেজ ও মাদরাসার সকল শিক্ষকদের জন্য বাধ্যতামূলক একবছর আইসিটি ডিগ্রি এবং স্কেল চালুর নির্দেশনা জারি করার জন্য শিক্ষাবান্ধব সরকারের প্রতি বিনীত অনুরোধ করছি।

♣নাজমুদ্দীন মোঃ তাওহীদ♣
♦জেলা শিক্ষক অ্যাম্বাসেডর, চট্টগ্রাম
♦শিক্ষক বাতায়নে সেরা কন্টেন্ট নির্মাতা
♦সম্পাদক ও প্রকাশক: দৈনিক শিক্ষা সংবাদ
♦হেড মাওলানা, কাসেম মাহবুব উচ্চ বিদ্যালয়
চন্দনাইশ উপজেলা সদর,চট্টগ্রাম
♦nmtawhed44@gmail.com
♦01303088745

📌📌শিক্ষা সম্পর্কিত খবরাখবর জানতে এখানে ক্লিক করে শিক্ষা গ্রুপে ঢুকে JOIN GROUP এ  ক্লিক করুন।গ্রুপে আপনিও শেয়ার করুন…

👉👉দৈনন্দিন শিক্ষা সম্পর্কিত খবরাখবর পেতে এখানে ক্লিক করে দৈনিক শিক্ষা সংবাদ পেইজে ঢুকে ” LIKE PAGE ” 👍 এ লাইক দিন

♣এডমিন,সম্পাদক ও প্রকাশক

 ♣♦ Najmuddin Md. Tawhed

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Facebook Comments