পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে অতিরিক্ত ও ছুটির দিন পাঠদানে ক্ষতি পুষিয়ে নিতে হবে

463

পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে অতিরিক্ত ও ছুটির দিন পাঠদানে ক্ষতি পুষিয়ে নিতে হবে

 

বিশেষ সাক্ষাৎকার
মো: মোস্তফা কামাল আহমদ
সিলেট শিক্ষা বোর্ডের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান

                ⭕   🌴 ☘️  ☘️ ☘️ 🌴⭕

📍📍শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের হৃদয়ের স্পন্দন…প্রাথমিক, মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক, স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা, বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল, ও প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় সহ শিক্ষা বিষয়ক সব ধরণের নির্ভরযোগ্য খবরাখবর সবার আগে পেতে ক্লিক করুন নিচে…  

 ☘️দৈনিক শিক্ষা সংবাদ পেইজে 👍লাইক দিন 

👉 জয়েন্ট করুন 🌿 শিক্ষা গ্রুপ✅

               🌿  🌴 🌿    🔴 🔴 🌿   🌴

মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, সিলেট এর ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মো: মোস্তফা কামাল আহমদ বলেছেন, করোনাভাইরাসের কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও প্রতিষ্ঠানগুলোকে অনলাইন কার্যক্রমের মাধ্যমে পাঠদানের মৌখিক নির্দেশনা দেয়া আছে। তবে পরবর্তিতে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক অতিরিক্ত ক্লাস এবং ছুটির দিনগুলোতেও পাঠদান কার্যক্রম পরিচালনা করে উক্ত ক্ষতি পুষিয়ে নেয়ার চেষ্টা করা হবে।

সম্প্রতি দৈনিক সংবাদ-এর সঙ্গে সাক্ষাৎকারে তিনি এ অভিমত ব্যক্ত করেন। গত ফেব্রুয়ারি মাসে বোর্ড চেয়ারম্যান অবসরজনিত ছুটিতে যাওয়ায় বোর্ডেরই সচিব মো: মোস্তফা কামাল আহমদ ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্বে থেকে সকল কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। তার দায়িত্বকালীন সময়েই মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষা-২০২০ এর ফলাফল প্রকাশিত হয়। আর এমন মুহূর্তেই তার মুখোমুখি হয় সংবাদ। নিম্নে সাক্ষাৎকারের চুম্বক অংশ তুলে ধরা হলো-

সংবাদ: আপনি সিলেট শিক্ষা বোর্ডের সচিবের পাশাপাশি ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান অর্থাৎ দু’টি পদের দায়িত্ব পালন করছেন। এতে করে আপনাকে কোনো সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে কি?

মো: মোস্তফা কামাল আহমদ: উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ কর্তৃক অর্পিত দায়িত্বাবলী নীতিগতভাবে আমি পালন করতে বাধ্য এবং তা নিষ্ঠার সাথে পালন করে যাচ্ছি।

সংবাদ: করোনাকালীন সময়ে যখন এসএসসির ফলাফল প্রকাশ হয়, তখন এই প্রথম বারের মতো বোর্ডে আপনি ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান-এতে আপনার অনুভূতি কেমন?

মো: মোস্তফা কামাল আহমদ: আমি ইতোপূর্বে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছি। তবে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে এসএসসির ফলাফল প্রকাশ এবারই প্রথম। করোনাকালীন সময়ে পরীক্ষার ফলাফল প্রক্রিয়াকরণের সাথে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় বিগত এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করেছি।

সংবাদ: এই সময়ে কিভাবে শিক্ষা বোর্ডের কার্যক্রম পরিচালনা করছেন এবং এতে কোনো ব্যঘাত ঘটছে কি?

মো: মোস্তফা কামাল আহমদ: সরকার কর্তৃক ঘোষিত নির্দেশনা মোতাবেক আংশিক অফিস কার্যক্রম খোলা রেখে এবং রোস্টার করে কর্মকর্তা-কর্মচারীগণের সহায়তায় অফিসের জরুরি কার্যক্রমসহ অনলাইনের মাধ্যমে সেবা গ্রহীতাদের সেবা প্রদান কার্যক্রমও অব্যাহত আছে।

সংবাদ: এই দুঃসময়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানও বন্ধ। প্রতিষ্ঠানগুলোতে আপনাদের কি বার্তা দেয়া হয়েছে?

মো: মোস্তফা কামাল আহমদ: সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহে অনলাইনে পাঠদান কার্যক্রম পরিচালনার জন্য মৌখিকভাবে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে এবং বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অনলাইনের মাধ্যমে তাদের পাঠদান কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

সংবাদ: বর্তমানে শিক্ষার্থীরা ক্লাস করতে পারছে না। এটা উত্তোরণের জন্য কি পদক্ষেপ নেয়া উচিত?

মো: মোস্তফা কামাল আহমদ: পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক অতিরিক্ত ক্লাস এবং ছুটির দিনগুলোতেও পাঠদান কার্যক্রম পরিচালনা করে উক্ত ক্ষতি পুষিয়ে নেয়ার চেষ্টা করা হবে।

সংবাদ: এবার এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ অনেক বেড়েছে। এর পেছনে মূল কারণ কি?

মো: মোস্তফা কামাল আহমদ: শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকগণের প্রচেষ্টায় এবং বোর্ডের নজরদারির কল্যাণে এ বছর এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ অন্যান্য বছরের তুলনায় বৃদ্ধি পেয়েছে। এ ধারা যাতে অব্যাহত থাকে এব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সংবাদ: ভবিষ্যতে আর কি কি করলে আপনার বোর্ডের ফলাফল আরও ভালো হতে পারে?

মো: মোস্তফা কামাল আহমদ: অধিকতর মনিটরিং এবং শিক্ষার্থীদের শতভাগ উপস্থিতির মাধ্যমে শ্রেণি কার্যক্রম পরিচালনা করা সম্ভব হলে আমি মনে করি ভবিষ্যতে ফলাফলে আরও উন্নতি করা সম্ভব হবে।

সংবাদ: শিক্ষার মানোন্নয়ন ও মেধা বিকাশে কি পদক্ষেপ নেয়া উচিত?

মো: মোস্তফা কামাল আহমদ: প্রতিষ্ঠান প্রধানগণের সহিত সভা, সেমিনার এবং শিক্ষার্থীদের শতভাগ উপস্থিতির মাধ্যমে পাঠ্যক্রমিক ও সহপাঠ্যক্রমিক শ্রেণি কার্যক্রম পরিচালনার মাধ্যমেই শিক্ষার মানোন্নয়ন ও মেধা বিকাশ সম্ভব বলে আমি মনে করি।

সৌজন্য : দৈনিক সংবাদ

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Facebook Comments